বর্ষবরণে মাতুন সংযতভাবে, আবেদন মুখ্যসচিবের

নিউজ ডেস্ক : বর্ষবিদায় ও বর্ষবরণে মেতে উঠবে মহানগরী। ৩১ ডিসেম্বরের রাত থেকেই শহরের বিভিন্ন পানশালা, নাইটক্লাব, রেস্তোরায় ভিড় জমান অসংখ্য মানুষ। কিন্তু এবার পরিস্থিতি অন্যরকম। করোনা ভাইরাস এখনও বিদায় নেয়নি, উল্টে নতুন স্ট্রেনের চোখ রাঙানি রয়েছে। চাই বর্ষবরণে সামিল হতে হবে সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে, সংযতভাবে, আবেদন জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যবাসীর উদ্দেশে মুখ্যসচিবের আহ্বান, ‘কোভিড পরিস্থিতিতে আপনারা শান্ত এবং সংযত ভাবে বর্ষবরণের উৎসবে সামিল হোন। ভিড় এড়ানোই ভাল। প্রত্যেকে মাস্ক পরুন। ট্রাফিক বুথগুলো সহায়তা কেন্দ্র হিসাবে কাজ করবে। বর্ষবরণের উদযাপন নিরাপদ ভাবে পালিত হোক।’

দুর্গাপুজো, কালীপুজো সহ সব উৎসবে নির্দেশিকা জারি করে আদালত। যার জেরে উৎসবের সময়েও করোনা প্রকোপ বাড়েনি। বর্ষবরণ নিয়েও হাইকোর্ট বেশ কিছু নির্দেশ দিয়েছে। ৩১ তারিখ বিকেল থেকে ভিড় নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে শহরে। বাইক এবং গাড়ির গতিতেও নজর থাকবে পুলিশকর্মীদের। ট্রাফিক বুথগুলোতে থাকবে পুলিশ। কেউ মাস্ক আনতে ভুলে গেলে, সেখান থেকে মাস্ক দেওয়া হবে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে বর্ষবরণের ভিড়ে রাশ টানতে ইতিমধ্যে বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যসচিবদের চিঠি পাঠানো হয়েছে। নাইট কার্ফু জারির কথা বলা হয়েছে। তবে এরাজ্যে নাইট কার্ফু জারির প্রয়োজন নেই বলে মনে করছে রাজ্য।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles