এসএসসিতে নিয়োগ নিয়ে ফের মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি

নিউজ ডেস্ক: কেন নিয়োগের মেধাতালিকায় নাম থাকা সত্ত্বেও ভবিষ্যৎ নিয়ে অনিশ্চয়তায় ভুগতে হবে ছেলে মেয়েদের? এবার এই প্রশ্ন তুলেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লিখলেন সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী। তাঁর দাবি, এই ঘটনা স্কুল সার্ভিস কমিশনের ‘চূড়ান্ত অপেশাদারিত্ব’ ‘অযোগ্যতা’র প্রমাণ।

এই প্রথম নয়, এর আগেও একাধিকবার এ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু রাজ্য সরকারের কোনও হেলদোলই নেই। তবে এবার বেশ কিছু প্রশ্ন তুলেছেন সুজন চক্রবর্তী। চিঠিতে তিনি মমতাকে লেখেন, “আপনার নিশ্চয়ই স্মরণে আছে কলকাতা মেয়ো রোডের পাশে ২০১৯ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত নিয়োগের দাবিতে অনশন চলেছিল। আপনি অনশন মঞ্চে গিয়ে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মেধা তালিকায় নাম থাকলে কেউ বঞ্চিত হবেন না। তা হলে এখন কেন এঁদের নিয়োগ করা হচ্ছে না।” গোটা বিষয়টিই ‘অস্বচ্ছ’ বলেও অভিযোগ করেছেন সুজন।

এক চাকরিপ্রার্থীর কথায়, বিষয়ভিত্তিক নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রায় ১৪ হাজারের একটি ওয়েটিং লিস্ট ছিল। তার মধ্যে থেকে প্রায় ১২ হাজার জনকে নিয়োগ করা হয়েছে। কিন্তু কর্মশিক্ষা, শারীরশিক্ষার ক্ষেত্রে প্রায় ১৮০০ জনের নাম ছিল। নিয়োগ করা হয়েছে ৪০-৫০ জনকে। তিনবার কাউন্সেলিং হলেও এরপর কী হবে তা নিয়ে আমরা অন্ধকারে। কতগুলি শূন্যপদ রয়েছে বা অন্যান্য কিছুই আমরা জানি না।” ২০১৬ সালে পরীক্ষার যে মেধা তালিকা প্রকাশিত হয়েছিল, তার অনেকেই এখনও নিয়োগপত্র হাতে পায়নি বলে অভিযোগ। যদিও এ প্রসঙ্গে স্কুল সার্ভিস কমিশনের এক আধিকারিক জানান, ২০১৬ সালের যে প্যানেল তৈরি হয়েছিল। তা থেকে ইতিমধ্যেই প্রয়োজন অনুযায়ী নিয়োগ করা হয়ে গিয়েছে। মূলত দু’টি ভাগের জন্য এই প্যানেল তৈরি করা হয়। নবম থেকে দ্বাদশের জন্য বিষয়ভিত্তিক নিয়োগ এবং কর্মশিক্ষা ও শারীরশিক্ষা বিষয়ক নিয়োগ।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles