হেস্টিংসে সাংসদের গাড়িতে হামলা, অভিযোগ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে

নিউজ ডেস্ক: বিজেপিতে নবাগত সাংসদ সুনীল মণ্ডলকে ঘিরে তৃণমূলের বিক্ষোভের জেরে উত্তপ্ত হয়ে উঠল হেস্টিংস চত্ত্বর। সাংসদের গাড়ির বনেটের উপরেও হামলা চালানো হয় বলেও অভিযোগ। কালো পতাকাও দেখানো হয়। বাধা দিতে গেলে শাসকদলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। পরে অবশ্য পুলিশ বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে গাড়ি যাওয়ার রাস্তা করে দেয়।

শনিবার সকালে বিজেপিতে আসা নবাগতদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল বিজেপি। এদিন বিজেপির হেস্টিংস অফিসে সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ আসেন তৃণমূল থেকে সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া সাংসদ সুনীল মণ্ডল। বিজেপি দফতরে সুনীলের গাড়ি ঢুকতে গেলে আটকে দেওয়া হয়। কালো পতাকাও দেখানো হয়। সঙ্গে চলে অবিরত স্লোগান। ঝান্ডা দিয়ে গাড়ির বনেটে মারা হয় বলেও অভিযোগ। সুনীল মণ্ডলকে কোনওরকমে বিজেপি কর্মীরা পার্টি অফিসের ভিতরে নিয়ে যায়। এরপর বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি তৃণমূল কর্মীদের। উত্তেজনা চরমে পৌঁছয়। সুনীল মণ্ডলকেও তৃণমূল কর্মীরা ধাক্কা দেয় বলে অভিযোগ।

হেস্টিংসে বিজেপির পার্টি অফিসের সামনে অস্থায়ী মঞ্চ করে কৃষি আইনের প্রতিবাদে পথসভা করছে তৃণমূল। বাজছে মাইকও। তার ফলে আবারও অশান্তির পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। যদিও এই হামলার বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই রাজ্যের বিজেপি পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় অমিত শাহকে চিঠি লিখেছেন। পাশাপাশিই ফোনেও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন। বিজেপি সূত্রের খবর, কৈলাস কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গে যে আইনশৃঙ্খলা পুরোপুরি ভেঙে পড়েছে, এই ঘটনাই তার প্রমাণ। সুনীলের গাড়ির উপর ‘হামলা’র অভিযোগের পাশাপাশি কিছুদিন আগে ডায়মন্ড হারবার যাওয়ার পথে বিজেপি সভাপতি জেপি নড্ডার গাড়ির উপর হামলার ঘটনাও জুড়ে দিতে চাইছে রাজ্য বিজেপি। দু’টি ঘটনাকেই ‘দৃষ্টান্ত’ হিসেবে তুলে ধরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন কৈলাস। বিজেপি এটিকে ভোটের প্রচারেও অস্ত্র হিসাবে যে ব্যবহার করবে, তা কার্যত নিশ্চিত।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles