‘আরও আলোচনা হবে’, পার্থ-পিকের সঙ্গে বৈঠকের পরও স্পষ্ট হল না রাজীবের অবস্থান

নিউজ ডেস্ক : ‘আগামী দিনের রণনীতি নিয়ে আলোচনা করার জন্য মহাসচিব ডেকেছিলেন।’ পার্থ চট্টোপাধ্যােয়র বাড়ি থেকে বেরিয়ে এমনই মন্তব্য করলেন ‘বিদ্রোহী’ তৃণমূল নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে একফ্রেমে পোস্টার প্রসঙ্গে শনিবারই তিনি বলেছিলেন, সবার সঙ্গে তাঁকে মেলালে চলবে না। তিনি তাঁর স্বতন্ত্র চিন্তাধারা নিয়ে চলেন। তারপরেই আলোচনার টেবিলে আমন্ত্রণ। এদিন ওই প্রসঙ্গে আলোচনা নিয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে অবশ্য মুখ খুললেন না হাওড়া তৃণমূলের এই শীর্ষ নেতা।

এদিন দক্ষিণ কলকাতায় তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে বসেন রাজীব। উপস্থিত ছিলেন দলের ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরও। প্রায় দেড় ঘণ্টা ধরে বৈঠক হয় তাঁদের। বৈঠক থেকে বেরিয়ে তৃণমূল নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘কারও কোনও ক্ষোভ থাকতেই পারে, আগামী দিনে আরও আলোচনা হবে। দলের মহাসচিব ডেকেছিলেন আগামী দিনের রণনীতি নিয়ে আলোচনা করার জন্য, তাই এসেছিলাম।’’

আমফানের ক্ষতিপূরণ নিয়ে হাওড়া জেলায় দলীয় দুর্নীতির অভিযোগের পরই সংঘাত চরমে উঠেছিল জেলার দুই শীর্ষ নেতা তথা রাজ্যের দুই মন্ত্রী অরূপ রায় ও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের মধ্যে। জেলা সংগঠনে রদবদল হলেও প্রায় তখন থেকেই রাজীবকে নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছিল রাজ্য রাজনীতিতে। কার্যত শুভেন্দু অধিকারীর ধাঁচেই অরাজনৈতিক মঞ্চেই বেশি দেখা যাচ্ছিল রাজীবকেও।

হরিদেবপুরে এক অরাজনৈতিক মঞ্চেই প্রথম দলের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘‘যাঁরা যোগ্যতার সঙ্গে কাজ করছেন তাঁরাই প্রাধান্য পাচ্ছেন না। যাঁরা যোগ্যতার সঙ্গে কাজ করার চেষ্টা করছে। তাঁদের সঙ্গে সঙ্গে পেছনের সারিতে ফেলে দেওয়া হচ্ছে।’’ এমনকী কামারপুকুরের এক অরাজনৈতিক সভাতেও ব্রাহ্মণদের দাবিদাওয়া পূরণ নিয়ে সরব হয়েছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরেও তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন তিনি। এরইমধ্যে দিকে দিকে পোস্টার ছেয়ে যায় রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে।

ইতিমধ্যেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লিখিয়েছেন বিধায়ক মিহির গোস্বামী। বিদ্রোহী নেতাদের তালিকায় নাম রয়েছে শুভেন্দু অধিকারী ও শীলভদ্রের।  রাজীবকে নিয়েও পরিস্থিতি যাতে হাতের বাইরে চলে না যায় সেই কারণেই হয়তো আগেভাগেই তৃণমূলের এই মানভঞ্জনের উদ্যোগ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles