নতুন প্রজাতির ডাইনোসরের সন্ধান বিজ্ঞানীদের

নিউজ ডেস্ক: সম্প্রতি এক বিশেষ প্রজাতির ডাইনোসরের সন্ধান পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। মুরগির আকারের এই ডাইনোসরের এমন কিছু বৈশিষ্ট্য দেখা গেছে যা আগে কখনও দেখা যায়নি। উত্তর-পূর্ব ব্রাজিলের চাপাদা দো আরারিপে এই বিশেষ সন্ধান পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

প্রকাশিত বিশেষ প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, এই বিশেষ প্রজাতির ডাইনোসরের ময়ূরের মতো পালক ছিল। জন্তুটির পিঠের নীচে হলুদ এবং বাদামি পশম ও দীর্ঘ সূঁচ ছিল। কাঁধের বাইরে রঙিন ব্রিজলস, কমলা রঙের একটি দীর্ঘ লেজ দেখা গেছে। জার্মানির ‘স্টেট মিউজিয়াম অফ ন্যাচরাল হিস্ট্রি’তে সংরক্ষিত একটি জীবাশ্ম পরীক্ষা করার সময় আন্তর্জাতিক এক গবেষক দল নতুন প্রজাতির এই ডাইনোসরটি খুঁজে পান। যার নাম দেওয়া হয়েছে উবিরাজরা জুবাতুস। ধারণা করা হচ্ছে, ১১০ কোটি বছর আগে এই প্রজাতির ডাইনোসর পৃথিবীর বুকে ঘুরে বেড়াত।

গবেষণায় বলা হয়েছে, ডাইনোসরের দুটি পা ছিল এবং তার দৈর্ঘ্য ছিল প্রায় ৫০ সেন্টি মিটারের মতো। ডাইনোসরটিকে একটি মোরগের মতো দেখতে লাগত। জীবাশ্ম থেকে জানা না গেলেও ধারণা করা হচ্ছে এই প্রজাতির ডাইনোসর বর্ণময় ছিল। গবেষকদের মতে, সূঁচের মতো এই জিনিসগুলো দিয়ে শত্রুদের ভয় দেখাত এই প্রজাতির ডাইনোসরেরা।

জানা গেছে, ১৯৯৫ সালে জার্মানির প্রাকৃতিক ইতিহাস কার্লসরুহে স্টেট মিউজিয়ামের পেলিয়নটোলজিস্ট এবার হার্ড ফ্রে ডাইনোসরের এই প্রজাতিটি আবিষ্কার করেছিলেন। বর্তমানে পোর্টসমাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞরা পুরনো সরীসৃপের কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট্য শনাক্ত করেছেন এই ডাইনোসরের মধ্যে। ক্রেটিসিয়াস রিসার্চ জার্নালে এ নতুন গবেষণার ফল প্রকাশিত হয়েছে।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles