লকডাউনে বেড়েছে কন্ডোমের চাহিদা

দেবমিতা ঘোষ মজুমদার

করোনা সংক্রমণের জেরে দেশজুড়ে জারি রয়েছে লকডাউন। এই পরিস্থিতিতে অনেক সংস্থাই ওয়ার্ক ফ্রম হোমের সুযোগ করে দিয়েছে। ফলে পরিবারে একসঙ্গে সময় কাটানোর মাঝে স্বামী-স্ত্রীর যৌন চাহিদা অনেকটাই বেড়েছে। সমীক্ষা বলছে, বাড়িতে বসে কর্পোরেট দুনিয়ার কাজের চাপের মাঝে শারীরিক মেলামেশা বহুগুণ বেড়ে গেছে। তবে জেন ওয়াই যুগের বেশিরভাগ মানুষেরা পরিবার পরিকল্পনার ক্ষেত্রেও অনেক বেশি সজাগ। তথ্য বলছে, বাজারে জন্ম নিয়ন্ত্রণের জন্য যে সমস্ত প্রোডাক্ট রয়েছে তার বিক্রিও প্রচুর বেড়েছে। যেমন বেড়েছে কন্ডোমের চাহিদা। মধ্য কলকাতার এক পান দোকানের মালিক রবি চৌরাসিয়া জানালেন, তার দোকানে আগের থেকে কয়েক গুণ বেড়েছে কন্ডোম বিক্রির সংখ্যা। ২৫ শতাংশ থেকে ৫০ শতাংশ বেড়েছে বিক্রি।

পাশাপাশি ন্যাশনাল ফ্যামিলি হেলথ সার্ভেতে উঠে এসেছে আরও একটি তথ্য। যেখানে দেখা গিয়েছে, গর্ভনিরোধ ব্যবস্থার ফলে দেশের বাড়তে থাকা জনসংখ্যায় কিছুটা হ্রাস টানা সম্ভব হয়েছে। মুম্বই, দিল্লি, বেঙ্গালুরু, কলকাতা-সহ বিভিন্ন রাজ্যের ওষুধ বিক্রেতারা জানাচ্ছেন, মেয়েদের গর্ভনিরোধ ওষুধের থেকে এখন বেড়েছে কন্ডোমের চাহিদা। ফ্যামিলি প্ল্যানিংয়ের ক্ষেত্রেও মেয়েদের থেকে অনেকটাই বেশি সচেতন ছেলেরা।

চিকিৎসক দীপক দাসের কথায়, মহিলারা গর্ভনিরোধ ওষুধ ব্যবহার করে জন্ম নিয়ন্ত্রণের যে চেষ্টা করত তা আদতে তাঁদেরই জীবনে ক্ষতি ডেকে আনত। সেক্ষেত্রে পুরুষদের কন্ডোম ব্যবহারের ক্ষেত্রে কোনও সাইড এফেক্ট নেই৷ কিন্তু দিন বদলেছে তাই বর্তমান বাজারে গর্ভনিরোধক ওষুধের জায়গা নিয়েছে কন্ডোমের চাহিদা।

 

 

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles