বিনা ওষুধে রোগ থেকে মুক্তি, হাতের কাছেই ঘরোয়া রেমিডি

নিউজ ডেস্ক: বয়স বাড়লে শরীরে রোগ বাসা বাঁধে এই কথাটা আমরা অনেকেই জানি। কিন্তু সেই রোগকে যদি আগে থেকেই প্রতিহত করা যায়  তাহলে কেমন হয়। আর যদি সেটা কোন মেডিসিন ছাড়াই হয় তাহলে তো আর কোন কথাই নেই। খেজুর খেতে আমরা কম বেশি সবাই ভালোবাসি। এবার সেই খেজুরই একপ্রকার ওষুধের কাজ করবে। পাকা খেজুরে প্রায় ৮০ শতাংশ চিনিজাতীয় উপাদান রয়েছে। বাদ-বাকি অংশে খনিজসমৃদ্ধ বোরন, কোবাল্ট, ফ্লুরিন, ম্যাগনেসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, সেলেনিয়াম এবং জিঙ্কের মতো গুরুত্বপূর্ণ খাদ্য উপাদান রয়েছে।

খেজুর শারীরিক ও মানসিক শক্তিবর্ধক। এমনকী খেজুরে রয়েছে প্রচুর পরিমানে খাদ্য উপাদান, যা শারীরিক ও মানসিক শক্তি বৃদ্ধি, হজম শক্তি এবং যৌনশক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। গবেষণায় দেখা গেছে খেজুরকে রাতে জলে ভিজিয়ে রেখে সকালে তা খেলে হার্টের সমস্যায় বেশ কাজ দেয়।

অফিসে কিছুই হয়তো নিয়ে যেতে পারেননি কিন্তু ব্যাগে যদি ৪ থেকে ৫ টা খেজুর রেখে দেন তাহলে অসময়ের সঙ্গীও পাবেন আবার দেহে বলও পাবেন। হজম না হলে সহজেই হজম শক্তি বাড়ায় খেজুর। বিশেষ করে শিশুদের নিয়মিত খাবারের তালিকায় যদি খেজুর রাখেন তাহলে অরুচিভাব দূর হবে। নিয়মিত খেজুর খেলে লাঙ্ক ক্যানসারকেও আটকানো সম্ভব বলে বিশষজ্ঞদের দাবি। এমনকী কোষ্ঠকাঠিন্যে দূর করতে খেজুর অপরীহার্য। শরীরে রক্তশূন্যতা, স্ট্রোকের ঝুঁকি ও উচ্চরক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। প্রত্যেকদিন খেজুর খেলে ত্বকের উজ্বলতা বাড়ে। তাই প্রত্যেকদিন ৪ থেকে ৫ টা খেজুর ব্যাস তাহলেই সমস্যার সমাধান।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles