বাড়ির ভিতরও হয় বায়ুদূষণ ! জানুন ঘরের কোন জিনিসগুলি বায়ুদূষণের কারণ

নিউজ ডেস্ক : কলকারখানা বা যানবাহনের ধোঁওয়া বাতাসে মিশে বাতাসকে দূষিত করে। এতো সবার জানা। কিন্তু আপনি জানেন কি আপনার ঘরে থাকা কিছু জিনিস থেকেও ঘরের বাতাস দূষিত হতে পারে! শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। জানুন কোন জিনিসগুলি থেকে ছড়ায় বায়ুদূষণ।


বাড়িতে পড়ে থাকা রং থেকে বায়ুদূষণ হতে পারে। রঙের জায়গা থেকে ভিওসি বা ভলাটাইল অরগ্যানিক কমপাউন্ডস গ্যাস বের হয়। যে গ্যাসের জন্য আমাদের শ্বাস নিতে সমস্যা হতে পারে। দূষণ এড়াতে কম ভিওসি আছে এমন রং ব্যবহার করতে পারেন।


ঘরের মেঝে, বাথরুম পরিষ্কার রাখতে যেসব জিনিস ব্যবহার হয় তা থেকেও বাতাস দূষিত হতে পারে। তাই দোকান থেকে কেনা ক্লিনিং প্রোডাক্টসের বদলে জল, ভিনিগার বা বেকিং সোডা দিয়ে পরিষ্কার করার চেষ্টা করুন।


এয়ার ফ্রেশনারের গন্ধ ভালো লাগলেও সেটা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ক্ষতিকর। বিভিন্ন কেমিক্যাল দিয়ে তৈরি করা হয় এয়ার ফ্রেশনার। তাই এসব ব্যবহার না করে ঘরের জানলা খুলে রাখুন, পাখা চালিয়ে রাখুন। ঘরে হাওয়া-বাতাস ঢুকলে কোনও দুর্গন্ধ হবে না।


এয়ার পিউরিফায়ার ওজন গ্যাস তৈরি করে যা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ক্ষতিকর। এয়ার পিউরিফায়ার ব্যবহার করলে ঘরের বাতাস সুগন্ধ হচ্ছে মনে হলেও আসলে সেটা দূষণ ছড়ায়।


সুগন্ধি বাতি থেকে বায়ুদূষণ হয়। তাই সুগন্ধি বাতির পরিবর্তে মোমের বাতি ব্যবহার করতে পারেন।


উড প্রোডাক্টস প্লাইউড, পার্টিকেল বোর্ডে থাকে ফর্মালডিহাইড। বছর দুয়েক পর থেকে এইসব থেকে একধরনের গ্যাস বের হয়, যা স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর। নো-ফর্মালডিহাইড পণ্য ব্যবহার করা উচিত, সেইসঙ্গে দেখতে হবে ঘরে যেন যথেষ্ট হাওয়া ঢুকতে পারে।

গ্যাস স্টোভ জ্বালালে সেটা থেকে নাইট্রোজেন অক্সাইড বের হয়। তাই গ্যাস স্টোভ জ্বালালে সবসময় জানলা খুলে রাখতে হবে। রান্নাঘরে যেন বাইরের বাতাস পর্যাপ্ত ঢুকতে পারে সে ব্যবস্থা রাখতে হবে। এক্সস্ট ফ্যান লাগাতে হবে রান্নাঘরে।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles