রাজ্যের পর এবার কেন্দ্র, নেতাজির ১২৫তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনে শাহর নেতৃত্বে কমিটি

নিউজ ডেস্ক: লক্ষ্য বাংলা, আর তাই একবছর আগে থেকেই নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৫তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন শুরু করতে চাইছে কেন্দ্র। গঠন করা হয়েছে ‘হাই লেভেল কমেমোরেশন কমিটির’। মঙ্গলবার বাংলায় ট্যুইট করে জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। যদিও এর আগেই রাজ্যে শুরু হয়ে গিয়েছ কর্মসূচি। নোবেলজয়ীদের নিয়ে ইতিমধ্যেই একটি কমিটি গঠন করেছে মমতার সরকার।

২০২২ সালের ২৩ জানুয়ারি ১২৫তম জন্মবার্ষিকী উদযাপিত হবে। ২০২১ সালের ২৩শে জানুয়ারি শুরু হবে এক বছর ব্যাপী উদযাপন। কীভাবে উদযাপিত হবে, ঠিক করতে শীর্ষ কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় সরকার। এই কমিটির নেতৃত্বে থাকবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। মঙ্গলবার সকােল এ নিয়ে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলাতেও ট্যুইট করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি লিখেছেন, ‘নেতাজী সুভাষ বোসের সাহস সুবিদিত। একজন বিদগ্ধ পন্ডিত, সৈনিক ও শ্রেষ্ট এই জননেতার ১২৫তম জন্মজয়ন্তী আমরা শীঘ্রই উদযাপন করতে চলেছি। এজন্য একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি তৈরি করা হয়েছে। আসুন, আমরা সকলে মিলে বিশেষ এই অনুষ্ঠানটিকে সাড়ম্বরে উদযাপিত করি।’

শীর্ষ কমিটিতে থাকবেন নানা বিশেষজ্ঞ, ইতিহাসবিদ, নেতাজির পরিবারের সদস্য এবং আজাদ হিন্দ ফৌজের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিত্বরা। দিল্লি এবং কলকাতার পাশাপাশি আজাদ হিন্দ ফৌজের প্রভাব বিশ্বের যে সব জায়গায় আজও বিদ্যমান, কমিটির নেতৃত্বে সেখানে চলবে নেতাজির স্মৃতিচারণ। পাশাপািশ সংস্কৃতি মন্ত্রকের বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, নেতাজির ‘মহামূল্য উত্তরাধিকার’ সংরক্ষণে সাম্প্রতিক অতীতে বেশ কয়েকটা পদক্ষেপ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এদিকে কলকাতার ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে নেতাজির উপর স্থায়ী প্রদর্শনী এবং লাইট অ্যান্ড সাউন্ড শো করার পরিকল্পনা রয়েছে কেন্দ্রের।

সম্প্রতি নেতাজির ১২৫তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষ্যে বিশেষ কমিটি গঠন করেছে রাজ্য সরকার। ওই কমিটিতে রয়েছেন নোবেলজয়ী অমর্ত্য সেন ও অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ও। একবছর ধরে বেশ কিছু কর্মসূিচ নিয়েছে রাজ্য, তা আগেই জানিয়েছন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপািশ কেন্দ্রের কাছে নেতাজি সম্পর্কিত তথ্য উদঘাটনের জন্য আর্জি জানিয়ে চিঠিও লিখেছেন তিনি। সেই চিঠির উত্তর না এলেও রাজ্য সরকােরর দেখাদেখি এবারও কেন্দ্রও গঠন করল শীর্ষ কমিটি। বছর ঘুরলেই রাজ্যে বিধানসভা ভোট, সেদিকে তাকিয়েই তৃণমূল -বিজেপি দু’পক্ষই নেতাজির ১২৫তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনে চমক রাখছে। তবে কেন্দ্রের এই সিদ্ধােন্তর সমালোচনাও করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles