তোলাবাজির মামলায় ছোটা রাজনের দু’বছরের কারাগারের নির্দেশ আদালতের

নিউজ ডেস্ক: তোলাবাজি ও খুনের হুমকির অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত আন্ডারওয়ার্ল্ড ডন ছোটা রাজন। সোমবার ছোটা রাজন-সহ মোট চারজনের দু’বছরের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিল মুম্বইয়ের এক আদালত। বর্তমানে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের সাজাতেই জেলবন্দি রয়েছে ছোটা রাজন। দিল্লির তিহার জেলের বিশেষ সেলে রয়েছে সে।

মুম্বই পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, পানভেল এলাকার এক নির্মাণ ব্যবসায়ী নন্দু ওয়াজেকরের কাছ থেকে ২৬ কোটি টাকা তোলা চেয়েছিল ছোটা রাজন। টাকা না দিলে খুনেরও হুমকি দেওয়া হয় অভিযোগ। আদালত সূত্রে খবর, ২০১৫ সালে ওয়াজেকর পুণেতে কয়েক একর জমি কেনেন। সেই কেনাবেচার কমিশন হিসেবে ২ কোটি টাকা পেয়েছিলেন জমির এজেন্ট পরমানন্দ ঠাক্কর। কিন্তু ওয়াজেকরের কাছে তিনি আরও বেশি টাকা দাবি করেন। এরপরই অতিরিক্ত টাকা আদায় করতে আন্ডারওয়ার্ল্ডের শরনাপন্ন হয় ঠাক্কর। তাঁর কথায় ওয়াজেকরের অফিসে লোক পাঠায় ছোটা রাজন। ২ কোটির বদলে ২৬ কোটি টাকা দাবি করা হয়। টাকা না দিলে মেরে ফেলারও হুমকি দেয় তারা। সেই মামলার রায়দান হল সোমবার।

রাজেন্দ্র এস নিখলজে ওরফে ছোটা রাজন। ১৯৮৪ সাল থেকে দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গে কাজ করত সে। ১৯৯৩ সালে মুম্বইয়ে ধারাবাহিক বিস্ফোরণের পর দু’জন আলাদা হয়ে যায় বলে সূত্রের খবর। তবে ইন্টারপোলের রেড কর্নার নোটিস জারির পর ২০১৫ সালে ইন্দোনেশিয়া সরকার রাজনকে ভারত সরকারের হাতে তুলে দেয়। তার বিরুদ্ধে খুন, খুনের চেষ্টা, খুনের হুমকি, তোলাবাজি, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ রয়েছে। সেই সমস্ত অপরাধেই দিল্লির তিহার জেলের বিশেষ সেলে বন্দি রয়েছে ছোটা রাজন।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles