সব রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ১৪ জানুয়ারির মধ্যে টিকা পৌঁছাবে, জানাল কেন্দ্র

বীরেন ভট্টাচার্য, নয়াদিল্লি

১৬ জানুয়ারি দেশজুড়ে করোনা ভাইরাসের টিকা প্রদান কর্মসূচি চালু করার ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেই মতো আজ থেকেই রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে টিকা পাঠানো শুরু হয়েছে। এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের তরফে জানানো হল, ঘোষিত দিনের দু’দিন আগেই অর্থাৎ ১৪ জানুয়ারির মধ্যে সমস্ত রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পৌঁছে যাবে করোনার টিকা কোভিশিল্ড। অক্সফোর্ডের কোভিশিল্ড এবং ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন টিকায় ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার এবং ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়া। আজ বিকেলের সাংবাদিক সম্মেলনে নীতি আয়োগের স্বাস্থ্য সদস্য ডাঃ ভিকে পাল বলেন, “দেশে তৈরি করা দুটি ভ্যাক্সিন গ্রহণ করে তাদের সমর্থন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আমি এর জন্য তাদের ধন্যবাদ জানাই।”

অক্সফোর্ড এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিশিল্ড এবং আইসিএমআর-ভারত বায়োটেকের তৈরি কোভ্যাক্সিনে ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। যদিও এখনও তৃতীয় পর্যায়ের পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট হাতে আসেনি ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিনের। এদিন স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ বলেন, “বিশেষ সম্মানে কেন্দ্রীয় সরকারকে ১৬.৫০ লক্ষ ভ্যাক্সিন বিনামূল্যে দেবে ভারত বায়োটেক”। তিনি জানান, ভারত বায়োটেক লিমিটেডে তৈরি হবে ৫৫ লক্ষ কোভ্যাক্সিন টিকা, তারমধ্যে ২৯৫ টাকা প্রতি ডোজ দরে বিক্রি করা হবে ৩৮.৫ লক্ষ টিকা। কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে, “সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া থেকে তৈরি করা হবে ১.১ কোটি কোভিশিল্ড টিকা, যারমূল্য হবে কর ছাড়া প্রতি ডোজে ২০০ টাকা।”

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের কথায়, “সারা বিশ্বে কোভিড পরিস্থিতি মারাত্মক অবস্থায় পৌঁছেছে। সেখানে ভারতে দৈনিক সংক্রমণের হার কমছে, তারপরেও আমরা কোনও শিথিলতা দেখাইনি।” কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণ বলেন, “কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাক্সিন, দুই টিকাই তাদের সুরক্ষা এবং অনাক্রমতা প্রমাণ করেছে।” আজ সকাল থেকেই বিভিন্ন রাজ্যে করোনার টিকা পাঠানোর কাজ শুরু করে দেওয়া হয়েছে সিরাম ইনস্টিটিউটের তরফে। সিরাম ইনস্টিটিউটের সিইও আদার পুনরওয়ালা বলেন, “অনেক দেশ প্রধানমন্ত্রীর দফতর এবং ভারতকে চিঠি লিখে সিরাম ইনস্টিটউট থেকে তাদের দেশে করোনার টিকা পাঠানোর আর্জি জানিয়েছে। আমরা সবাইকে খুশি রাখতে চাই। তার সঙ্গে আমাদের দেশবাসী এবং দেশের যত্ন নিতে হবে।” তিনি আরও বলেন, “প্রতিমাসে আমরা ৭০-৮০ মিলিয়ন ডোজ টিকা তৈরি করি। ভারত এবং বিদেশে কত টিকা দেওয়া হবে, তার পরিকল্পনা চলছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রক অন্যান্য পরিকল্পনা করছে। ট্রাক, ভ্যান এবং হিমঘরের জন্য আমরা বেসরকারি ক্ষেত্রের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছি।”

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের এদিনের দৈনিক বুলেটিনে জানানো হয়েছে, গত মাসে মাসে এবার সর্বনিম্ন হার কোভিড আক্রান্তের। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ১২,৫৮৪, ২৫টি রাজ্যে করোনায় অ্যাক্টিভ কেসের সংখ্যা ৫ হাজারের নীচে। ব্রিটেনের নয়া স্ট্রেইনে এদেশে আক্রান্ত ৯৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা শূন্য।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles