কৃষক আন্দোলন নিয়ে মুখ খুললেন প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক: ‘কৃষক নেতাদের ভুল বোঝানো হচ্ছে।’ দিল্লিতে কৃষক আন্দোলন নিয়ে এই প্রথম মুখ খুললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শুক্রবার মধ্যপ্রদেশের রায়সেন জেলায় অনুষ্ঠিত ‘কিষান কল্যাণ’ অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানেই কেন্দ্রের তিনটি নয়া কৃষি আইন নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেন প্রধানমন্ত্রী। বিতর্কের মাঝেই কৃষকদের সহানুভূতি আদায় করার চেষ্টা করলেন প্রধানমন্ত্রী।

‘আমি শুধু চাই কৃষকদের জীবন আরও সহজ হয়ে উঠুক। কৃষিক্ষেত্রে আধুনিকীকরণ ও উন্নয়ন চাই আমি। ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য দেওয়া হবে।’ এদিন মধ্যপ্রদেশের রায়সেন জেলায় অনুষ্ঠিত ‘কিষান কল্যাণ’ অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল ভাষণে এই কথা শোনা গেলেও নতুন তিনটি কৃষি বিলের প্রশংসাও শোনা গেল ঢের। যেখানে প্রধানমন্ত্রীর এই তিনটি দাবির কোনও উল্লেখ নেই বলে অভিযোগ আন্দোলনরত কৃষকদের। যদিও মোদি এই আন্দোলনের নেপথ্যে কংগ্রেসের হাত রয়েছে বলে পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, ‘‘আমায় ক্রেডিট দিতে হবে না। আপনাদের পুরনো ঘোষণাপত্রকে ক্রেডিট দিচ্ছি। আমি কৃষকদের ভাল চাই। আপনারা কৃষকদের বিভ্রান্ত করা বন্ধ করুন। এই আইন ৬ মাসের বেশি হয়ে গেল তৈরি হয়েছে। এখন হঠাত্‍ বিরোধীরা লাফাতে শুরু করল। কৃষকদের কাঁধে বন্দুক রাখা হচ্ছে।’’

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এদিন বলেন, ‘‘যে কাজ ২৫ বছর আগে হওয়ার কথা ছিল, তা আজ হল। কৃষকদের জন্য নতুন আইন হয়েছে, তা রাতারাতি হয়নি। রাজ্য সরকারগুলির সঙ্গে কথা বলে তৈরি হয়েছে। এখন বিরোধীরা কৃষকদের ভুল বুঝিয়ে রাজনীতি করছে।’’ এখানেই থেমে না থেকে এরপর কৃষকদের স্বার্থে কেন্দ্রীয় প্রকেল্পর কথাও তুলে ধরলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘দেশের ৩৫ লক্ষ কৃষকের অ্যাকাউন্টে ১৬৬০ কোটি টাকা ট্রান্সফার করেছে কেন্দ্র। কৃষকদের ফসলের নানা লোকসানের ক্ষতিপূরণ দেবে রাজ্য সরকার। বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

 

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles