Html code here! Replace this with any non empty raw html code and that's it.

ভারতীয় ফুটবলারের সমস্যা মেটাতে ঋণ নেওয়ার পরিকল্পনায় লাল-হলুদ শিবির

নিউজ ডেস্ক: অন্য দলের ভারতীয় ফুটবলারের খোঁজ চলছে লাল–হলুদে। এসসি ইস্টবেঙ্গল ম্যানেজমেন্ট এখন তাই আইএসএলের বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে জানার চেষ্টা করছে, জানুয়ারিতে সেকেন্ড উইন্ডোতে কোন কোন ভারতীয় ফুটবলারকে লোনে পাওয়া সম্ভব হবে। আইএসএলে জয়ের মুখ দেখতে এবার নয়া পন্থা অবলম্বন করতে চলেছে লাল–হলুদ ম্যানেজমেন্ট।

আইএসএলে সরকারিভাবে নথিভুক্ত হওয়ার পরেই ব্রাইটের নাম সরকারি ভাবে ঘোষণা করবে এসসি ইস্টবেঙ্গল। তবে ইতিমধ্যেই গোয়া এসে লাল-হলুদ শিবিরের কোয়ারেন্টাইনে চলে গিয়েছেন নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার। তাঁকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। তারপর মাঠে নামতে পারবেন। এদিন সকালে গোয়ায় এসে লাল–হলুদ শিবিরে এসে যোগ দিলেও কোচ রবি ফাউলার বা দলের কারও সঙ্গেই দেখা করার সুযোগ হয়নি নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার ব্রাইটের।

বিদেশি ফুটবলার থাকলেও ভারতীয় ফুটবলার নিয়ে সমস্যা থেকেই গিয়েছে লাল-হলুদ শিবিরে। কিন্তু এই মুহূর্তে যাঁকেই নতুন করে দলে নেওয়া হবে, তাঁকেও ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। তারপর দলের সঙ্গে অনুশীলন দেখে রবি ফাউলার সিদ্ধান্ত নেবেন, সেই ভারতীয় ফুটবলারদের আদৌও খেলানো সম্ভব হবে কি না। তার চেয়ে ভাল অন্য দল থেকে ভারতীয় ফুচবলারদের লোন বা ঋণে নেওয়া। অনেক দলে একই পজিশনে বেশ কিছু ফুটবলার থাকলে, কয়েকজনকে রিলিজ করে দিলেও করতে পারে। তবে এসব সম্ভব হবে জানুয়ারি থেকে ফিফার সেকেন্ড উইন্ডোতে। এসসি ইস্টবেঙ্গল ম্যানেজমেন্ট এখন তাই আইএসএলের বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলছে বলে সূত্রের খবর। এতে দু’টি সুবিধা হবে বলে মনে করছে লাল-হলুদ শিবির। এক, আইএসএলে খেলার মানের ফুটবলার পাওয়া যাবে। দুই, বায়ো বাবল থেকেই ফুটবলার নেওয়ার ফলে শিবিরে যোগ দেওয়ার পরে কাউকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে না।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles