শুভেন্দুর প্রথম জনসভা, জনজোয়ারে ভাসল কাঁথি

নিউজ ডেস্ক: ‘মেদিনীপুর বিশ্বাসঘাতকদের জন্ম দেয় না। আমি চ্যালেঞ্জ করছি, দুই মেদিনীপুর সহ ঝাড়গ্রামের ৩৫টা আসনেই তৃণমূলকে হারাব। মেদিনীপুরের মাটি বর্ণপরিচয় স্রষ্টা বিদ্যাসাগরের মাটি। শহিদ ক্ষুদিরামের মাটি, মাতঙ্গিনী হাজরার মাটি।’ বৃহস্পতিবার ফের অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, ‘ভাইপোতে আমার আপত্তি নেই। আপত্তি তোলাবাজ ভাইপোতে।’

দল বদলের পর বৃহস্পতিবার বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর প্রথম সভাতেই জনজোয়ারে ভাসল কাঁথি। বুধবারই শুভেন্দু গড়ে সভা করেছিলেন সৌগত রায় ও ফিরহাদ হাকিম। সেই সভায় ছিল উপচে পড়া ভিড়। তার ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানেই দল পরিবর্তনের পর প্রথম সভাতেই জনজোয়ারে ভাসলেন শুভেন্দু অধিকারী। এদিন কাঁথির মেচেদা বাইপাস থেকে শুরু হয় শুভেন্দু অধিকারীর রোড শো। ৫ কিমি রোড শো শেষে কাঁথি বাস স্ট্যান্ডে সভা করেন বিজেপি নেতা। এদিনের জনজোয়ারই বলে দিচ্ছে মেদিনীপুরে এখনও অধিকারী রাজ অব্যাহত। রোড শোতে এদিন তাঁর সঙ্গে ছিলেন সৌমিত্র খাঁ, জয়প্রকাশ মজুমদার সহ অন্যান্য বিজেপি নেতৃবৃন্দ।

এদিন মানুষের ভিড়ে বার বার থমকে যায় শুভেন্দু অধিকারীর গাড়ি। আশপাশের বাড়ি থেকে বিজেপি নেতাকে লক্ষ্য করে চলে পুষ্পবৃষ্টি। একই সঙ্গে এ দিন সৌগত রায় এবং ফিরহাদ হাকিমকেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি শুভেন্দু অধিকারী৷ তিনি বলেন, ‘ওঁরা বার বার এখানে এসে চেষ্টা করছে যাতে আমি পূর্ব মেদিনীপুরে আটকে থাকি৷ কিন্তু লাভ হবে না৷ আমাকে এখানে আটকে রাখা যাবে না৷ আমি গোটা বাংলার৷’

এ দিন অমিত শাহের সুর শোনা গেল শুভেন্দুর গলাতেও। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি রাজ্যে ২০০-র বেশি আসন পাবে বলেও দাবি করেন নব্য বিজেপি নেতা। আগামী ৭ জানুয়ারি নন্দীগ্রামে সভা করার কথা রয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ তার পাল্টা ৮ জানুয়ারি সভা করে মুখ্যমন্ত্রীর সভার জবাব দেবেন বলে এদিন জানিয়ে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী।

 

 

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles