পুরুলিয়ার সভায় গরহাজির চার বিধায়ক

নিউজ ডেস্ক: ‘রাঙামাটির দেশে’ ‘গাঁয়ে চলো’ অভিযান তৃণমূলের। পুরুলিয়ায় অভিযানের বিশেষ সভায় গরহাজির থাকলেন জেলার চার বিধায়ক। কেউ বললেন দলীয় কাজেই কলকাতায় গিয়েছিলেন, কেউ বা বললেন স্থানীয় বৈঠক ছিল। আবার কেউ বা বললেন দলীয় কর্মীর শেষকৃত্যে ছিলেন।

শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগদানের সময়ই বেশ কিছু তৃণমূল নেতা বিজেপিতে গিয়েছে। মালদা, পুরুলিয়ার মতো জেলায়, তৃণমূলে থাকাকালীন যেখানে যেখানে সংগঠনের দায়িত্বে ছিলেন, সেখানে সেখানেই ভাঙনের সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে বলে মনে করছেন রাজনৈিতক বিশেষজ্ঞরা। যার ছাপ দেখা গেল পুরুলিয়ায় ‘গাঁয়ে চলো” অভিযানের সূচনাতেও। এই সভাতে অনুপস্থিত ছিলেন কাশিপুরের তৃণমূল বিধায়ক স্বপন বেলথরিয়া, পাড়ার বিধায়ক উমাপদ বাউরি, রঘুনাথপুরের বিধায়ক পূর্ণচন্দ্র বাউরি আর বান্দোয়ানের বিধায়ক রাজীবলোচন সরেন। দলীয় সভায় চার বিধায়কের অনুপস্থিতি তৃণমূলের চিন্তা বাড়িয়ে তুলছে।

রাজীবলোচন সোরেন বলেন, ‘‘দলীয় কাজে কলকাতায় গিয়েছিলাম। তাই সভায় যোগ দিতে পারিনি।’’ আর এটা নাকি তিনি আগেই জেলা সভাপতিকে জানিয়ে দিয়েছিলেন। স্বপন বেলথরিয়া বলেন, ‘‘অনেকদিন ধরে পুরুলিয়ায় অনেক কাজ আটকে ছিল, আর সেই কাজগুলো করার কারণে যেতে পারিনি।’’ উমাপদ বাউরি জানান, স্থানীয় একটি বৈঠক থাকার কারণে তিনি বৈঠকে যোগ দিতে পারেননি। পূর্ণচন্দ্র বাউরি জানান, একজন দলীয় কর্মী প্রয়াত হয়েছেন, তিনি সেখানেই ব্যস্ত ছিলেন। যদিও জল্পনা থামার নয়।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles