স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন স্বামীর, ঘটনার পর বেপাত্তা অভিযুক্ত

নিউজ ডেস্ক: স্ত্রীর গলা কেটে খুন করে বেপাত্তা স্বামী। সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটে মালদহ মানিকচক থানার উগরিটোলা গ্রামে। পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত মহিলার নাম চন্দনা রায় বয়স ৪০। এবং অভিযুক্ত স্বামীর নাম ঝন্টু রায়। পরিবারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে, প্রত্যেকদিন বিভিন্ন কারণে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকত। সোমবার রাতেও স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে তর্কবিতর্ক শুরু হয়। অভিযোগ, তখনই ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে স্বামী ঝন্টু রায়। রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। মায়ের চিৎকার শুনে মেয়ে জয়শ্রী রায় ছুটে গেলে বাবা সেখান থেকে চম্পট দেয়। তড়িঘড়ি স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতায় চন্দনাদেবীকে উদ্ধার করে মানিকচক গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। মানিকচক থানার পুলিশ দেহ নিজেদের হেফাজতে নিয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

দম্পতির মেয়ে জয়শ্রী রায় জানান, বাবা কোনও কাজ করতেন না। মা তাদের সংসার চালাতেন। কিন্তু বাবা প্রত্যেকদিন মদ্যপ অবস্থায় মাকে মারধর করতেন বলেও জানান তিনি। ঘটনায় শোকের ছায়া নেমেছে গোটা এলাকায়। মানিকচক থানার পুলিশ মঙ্গলবার দেহ ময়নাতদন্তের জন্য মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে মানিকচক থানার পুলিশ।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles