বেয়াইয়ের সঙ্গে ঘর বাঁধতে নাবালিকা মেয়ের বিয়ে দিলেন মা

নিউজ ডেস্ক: মেয়ের বিয়ের তিন মাসের মধ্যেই বেয়াইকে নিয়ে ঘর ছাড়লেন বেয়ান। ইচ্ছে ছিল নতুন ঘর বাঁধার। কিন্তু সে গুড়ে বালি ঢালল দুই পরিবারের সদস্যরা। মুর্শিদাবােদর এই ঘটনায় ফরাক্কা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন বেয়াই আলম শেখের স্ত্রী ও পরিবার। অন্যদিকে স্ত্রী ও তাঁর প্রেমিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন মহিলার স্বামীও।

স্থানীয় সূত্রে খবর, মাসতিনেক আগে খুন্তিপাড়া এলাকার সালমা বিবির নাবালিকা মেয়ের সঙ্গে বিয়ে হয় আলম শেখের নাবালক পুত্রের। কর্মসূত্রে সেই সময় দিল্লিতে ছিলেন নাবালিকার বাবা। জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরেই আলমের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল সালমার। যোগাযোগে যাতে কোনও বাধা না থাকে, সেই কারণেই তড়িঘড়ি প্রেমিকের নাবালক ছেলের সঙ্গে মেয়ের বিয়ে দিয়েছিল সালমা। কিন্তু এত ফন্দি করেও লাভ কিছুই হল না। স্বামী ফিরতেই ধরা পড়ে যায় সালমা।

মেয়ের বিয়ের কথা জেনে অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হন সামলার স্বামী। এই নিয়ে অশান্তির মাঝেই প্রকাশ্যে আসে সালমা ও আলমের সম্পর্কের কথা। বাড়ে অশান্তির মাত্রা। এরপরই দিন চারেক আগে আচমকা উধাও হয়ে যায় সালমা ও আলম। বিভিন্ন এলাকায় চলে খোঁজাখুঁজি। বৃহস্পতিবার অর্থাৎ ১৭ ডিসেম্বর সামশেরগঞ্জের ধুলিয়ান পুরসভা এলাকায় এক আত্মীয়ের বাড়িতে ধরা পড়ে ওই যুগল। খবর পেয়ে আলম শেখের স্ত্রী সন্তান-সহ পাড়া প্রতিবেশীরা হাজির হয় ঘটনাস্থলে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশও। তাঁরাই যুগলকে উদ্ধার করে জঙ্গিপুর আদালতে পাঠায়। ফরাক্কা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন আলম শেখের স্ত্রী ও পরিবার। অন্যদিকে নাবালিকা কন্যাকে বিয়ে দেওয়ার অভিযোগে স্ত্রী ও তাঁর প্রেমিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন সালমার স্বামী।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles