ধুন্ধুমার পূর্ব মেদিনীপুরে, শুভেন্দুর অনুগামীদের সঙ্গে সংঘর্ষ তৃণমূল কর্মীদের

নিউজ ডেস্ক: শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামীদের সঙ্গে তৃণমূল কর্মীদের সংঘর্ষে উত্তপ্ত পূর্ব মেদিনীপুর। কাঁথিতে তৃণমূলের সভার দিনই, রামনগরে বিজেপির মিছিল ঘিরে ধুন্ধুমার। বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূল কর্মীদের হামলায় তাদের ৬-৭ জন কর্মী আহত হয়েছেন। এরপরই তৃণমূল পার্টি অফিস লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি শুরু করে বিজেপি কর্মীরা। তৃণমূল পাল্টা অভিযোগ করেছে, বিজেপি কর্মীরাই তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে।

বিজেপিতে যোগ দিয়েই তৃণমূলের বিরুদ্ধে একের পর এক আক্রমণ শানাচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী। এবার শুভেন্দুর ওপর পাল্টা চাপ তৈরি করতে, তাঁর জেলাতেই পদযাত্রা এবং সভা করছে তৃণমূল। বুধবার কাঁথির এই কর্মসূচি রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম এবং তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়ের নেতৃত্বে। তার আগেই মঙ্গলবার অবশ্য এলাকায় আর নয় অন্যায় কর্মসূচির আয়োজন করে বিজেপি। তাদের অভিযোগ, অনুষ্ঠানে হামলা চালায় তৃণমূল কর্মীরা। প্রতিবাদে রাতেই রামনগরে পথ অবরোধ করে বিজেপি। এদিন সকাল থেকেও এলাকায় প্রবল উত্তেজনা ছিল। সকালেও এলাকায় মিছিল করেন বিজেপি কর্মীরা। সেখানেও তৃণমূলের কর্মীরা হামলা চালায় বলে অভিযোগ। ওইসময় এক বিজেপি কর্মীর মাথা ফাটে, আরও কয়েকজন আহত হন।

বিজেপিতে যোগদানের পর প্রথম নিজের গড় কাঁথিতে বৃহস্পতিবার সভা করবেন শুভেন্দু অধিকারী। তার আগে বুধবার কাঁথির ক্যানেল পার্ক থেকে ডরমেটারি মাঠ পর্যন্ত পদযাত্রা হবে। তারপর ডরমেটারি মাঠেই হবে সভা। সভায় উপস্থিত থাকবেন, রামনগরের তৃণমূল বিধায়ক অখিল গিরি। যিনি শুভেন্দু-বিরোধী গোষ্ঠীর বলেই পরিচিত। শুভেন্দুর ভাই, তৃণমূল সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারীর দাবি, বুধবারের কর্মসূচিতে তাঁকে ডাকা হয়নি। সভা পূর্ব নির্ধারিত হওয়া সত্ত্বেও, তাঁকে এবিষয়ে কিছু জানানো হয়নি। যদিও তৃণমূল বিধায়ক অখিল গিরির পাল্টা দাবি, শিশির অধিকারীকে তিনি ফোন করে সভার ব্যাপারে জানান। কিন্তু, পায়ে চোট থাকায় তিনি আসতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles