‘বেইমান, বিশ্বাসঘাতক শুভেন্দু’! বিজেপি-যোগে ক্ষোভ শহিদ পরিবারে

নিউজ ডেস্ক: নন্দীগ্রামের মাটিতে বহু বিপ্লবী, মনীষীদের জন্ম হয়েছে। কে জানত এই নন্দীগ্রােমর মাটিতেই এমন ‘বেইমান, বিশ্বাসঘাতকের’ও জন্ম হতে পারে! শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপিতে যোগদানের খবরেই উত্তাল নন্দীগ্রাম। একরাশ ক্ষোভ উগরে দিল শহিদ পরিবােরর সদস্যরা।

নন্দীগ্রামের সাতেঙ্গার বাড়িতে শহিদ শেখ ইয়াসমিনের শেখ শাহরুন জানান, তখন ২০০৯। নন্দীগ্রাম অন্দোলন নিয়ে উত্তপ্ত এলাকা। লোকসভা ভোেট কংগ্রেসের জোটসঙ্গী ছিল তৃণমূল। ভাঙা গলায় শহিদের ছেলে বলেন, ‘‘আমরা কেউ ভোট দিতে যাব না বলে ঠিক করেছিলাম। কিন্তু শুভেন্দুবাবু ফোন করে পরিবােরর সবাইকে ভোট দিতে অনুরোধ করছিলেন বার বার। কিন্তু ভোট দিয়ে আসার পথে সিপিএমের হার্মাদ বাহিনীর গুলিতে আমার বাবার মৃত্যু হয়। আজ সেই শুভেন্দুবাবু বিশ্বাসঘাতকতা করলেন।’’

শহিদ শেখ ইমাদুল। ২০০৭-এর ১৪ মার্চে তিনি নিহত হন। তাঁর ছেলে শেখ দয়ান জানান, ‘আমি তৃণমূলের সঙ্গে রয়েছি। শুভেন্দুবাবু বেইমানি করলেন।’ একই কথা উঠে এল নন্দীগ্রাম ১-এর তৃণমূল সভাপতি স্বদেশরঞ্জন দাস। প্রায় প্রত্যেক শহিদ পরিবােরর একটাই বক্তব্য, ‘যিনি আমাদের লড়াই করতে শেখালেন, আজ তিনিই লড়াইয়ের ময়দান ছেড়ে পালিয়ে গেলেন।’’ এদিকে শনিবারই পদ্ম আঁকা পতাকা হাতে তুলে নিলেন শুভেন্দু। শুধু তাই নয়, একুশে জেতার বিষয়েও সওয়াল করলেন। এখন দেখার, নন্দীগ্রামে রাজনৈতিক সমীকরণ কী দাঁড়ায়!

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles