‘অন্যায় অন্দোলন করেছি, ক্ষমতায় এলে টাটাকে ফিরিয়ে আনব’, নন্দীগ্রামের সভায় দাবি মুকুলের

নিউজ ডেস্ক: ‘সিঙ্গুর আন্দোলনে আমরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সঙ্গ দিয়ে বাংলার যুব মানুষদের সঙ্গে অন্যায় করেছি। আমরা যদি জিততে পারি শিল্পের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে দরবার করব, টাটাকে ফিরিয়ে আনার কথা বলব।’ নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীর মেগা শোতে হাজির হয়ে তৃণমূলকে তোপ দাগলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়।

এদিন নন্দীগ্রামের মাটিতে দাঁড়িয়ে ১৩ বছর আগের আন্দোলনের কথা তুলে ধরেন মুকুল রায়। বলেন, ‘নন্দীগ্রামের বাসিন্দাদের সমস্ত কিছু কেড়ে নেওয়ার চক্রান্ত করেছিল মার্কসবাদী কমিউনিস্ট পার্টি। সেই আন্দোলনে আমরা জিতেছিলাম। সেই লড়াইয়ের নেতৃত্ব দিয়েছিল শুভেন্দু অধিকারী। নন্দীগ্রাম আন্দোলনের শহিদদের পরিবারকে দেখাশুনা করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। একটা পরিবর্তনের হাওয়া উঠেছে। সেই হাওয়ায় সবাইকে সামিল হতে হবে। নন্দীগ্রামের মাটি সংগ্রামের মাটি। এখান থেকে পরিবর্তনের ডাক দিতে হবে।’ এরপরই সরাসরি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেন মুুকুল। বলেন, ‘এত মিথ্যা কথা বলতে কোনও মুখ্যমন্ত্রীকে আমি দেখিনি। এই লড়াইয়ের আমাদের বাংলায় নতুন করে ফুল ফোটাতে হবে। এখান থেকে আমাদের ভোটের ফলাফল এমন জায়গায় নিয়ে যেতে হবে যাতে ওদের শিক্ষা হবে। আজকে যারা দলে আসছে, তাদের জায়গা করে দিতে হবে, সুযোগ করে দিতে হবে। তবেই পরিবর্তন বাস্তব হবে।’

নন্দীগ্রামের জমি আন্দোলন নিয়ে বিরূপ মন্তব্য না করলেও সিঙ্গুরে আন্দোলন করা ভুল ছিল বলে এদিন দাবি করলেন মুকুল রায়। বলেন, ‘এই মাঠে যখন আন্দোলন হয়েছিল, তার কয়েকমাস আগেই সিঙ্গুর আন্দোলন হয়েছিল। সিঙ্গুর আন্দোলনে আমরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সঙ্গ দিয়ে বাংলার যুব মানুষদের কাছে অন্যায় করেছি। আজকে টাটাকে তাড়িয়ে দেওয়ার পরে নতুন কোনও কল কারাখানা বাংলায় আর হয়নি। আমি সিঙ্গুরের মাটিতে গিয়ে একথা বলেছিলাম। আমরা যদি জিততে পারি শিল্পের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে দরবার করব, টাটাকে ফিরিয়ে আনার কথা বলব।’ শুধু তাই নয় নন্দীগ্রামের সঙ্গে সিঙ্গুরের লড়াই আলাদা ছিল বলেও দাবি করলেন মুকুল।

Related Articles

- Advertisement -

Latest Articles